সেন্টমার্টিন ঘুরতে গিয়ে হৃদরোগে মৃত্যু

12

হেলাল উদ্দিন: প্রবালদ্বীপ সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে এসে মো. মাসুদুর রহমান (৪২) নামের এক পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার ২২ ডিসেম্বর সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান।

সেন্ট মার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আবদুল বাতেন ও সেন্ট মার্টিন ২০ শয্যা হাসপাতালের চিকিৎসক নাঈমুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মাসুদুর রহমান জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বাউলার চরের শামসুল হকের ছেলে এবং টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা এলাকায় বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের শাখা ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে তিনি সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

পুলিশ ও স্বজনেরা জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সেন্ট মার্টিনের ‘সি ফাইন্ড রিসোর্টে’ ওঠেন মাসুদুর রহমান। তারা সেখানে রাত যাপন করেন। পরের দিন শুক্রবার সকালে মাসুদুর বুকে ব্যথা অনুভব করলে তাকে দ্বীপের ২০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মৃত ঘোষণা করেন।

সেন্ট মার্টিন ২০ শয্যা হাসপাতালের চিকিৎসক নাঈমুর রহমান বলেন, হৃদরোগজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। মৃতের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন নেই। তার স্বজনরাও জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তির হৃদরোগের সমস্যা ছিল। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

মাসুদুর রহমানের স্ত্রী মাসুমা আক্তার বলেন, তার স্বামীর হৃদরোগের সমস্যা ছিল। ভোরবেলা হঠাৎ করে বুকে ব্যথা শুরু হলে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সেন্ট মার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আবদুল বাতেন বলেন, মারা যাওয়া মাসুদুর রহমান ব্র্যাকের কর্মকর্তা হিসেবে টেকনাফে চাকরি করতেন। তার স্ত্রী দেওয়ানগঞ্জ সরকারি কলেজের শিক্ষক। স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে এসে তিনি মারা গেছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে স্থানান্তর করা হয়।