গরীব ও অসহায় মানুষের পাশে শেখ ফরিদ রিপন

9

চট্টগ্রাম নগরীর ইপিজেড থানাধীন ৩৯নং ওয়ার্ড টি সি বি গল্লির ইপিজেড থানা শ্রমিকলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শেখ ফরিদ রিপন গরীব ও অসহায় মানুষের পাশে মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন।

২০১৮ সালের শেষে শ্রমিক লীগের কর্মকাণ্ড শুরু করেন এই শেখ ফরিদ রিপন। ২৫অক্টোবর মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার সময় গরীবদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে শ্রমিকলীগের শেখ ফরিদ রিপন বলেন, বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের আগে থেকেই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে আসছি।

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবা এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের বিরূপ প্রভাবে সমগ্র বিশ্বেই অর্থনৈতিক মন্দা চলমান রয়েছে। আমাদের দেশে সরকারের পক্ষ থেকে জনকল্যাণে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে গরীব ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আমার সাধ্য মোতাবেক সাহায্য-সহযোগিতা করে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭৫সালের ১৫ আগস্টের কালো রাতে নির্মম হত্যা কাণ্ডের শিকার সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সহধর্মিণী মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিবসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এবং জাতীয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী সকলকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন এবং সকল শহীদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। একাত্তরের পরাজিত শত্রু বাংলার প্রকৃত ইতিহাসকে বিকৃত করার জন্য বঙ্গবন্ধুর নামকে মুছে ফেলার জন্য অতীতের ন্যায় এখনো নানামুখী ষড়যন্ত্রে রয়েছে। যারা বাস্তবকে অস্বীকার করে কল্পিত কাহিনী ও পরিস্থিতি বানিয়ে দেশের সরলপ্রাণ মানুষকে বিভ্রান্ত ও বিপথগামী করে দেশের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও শান্তির ধারাকে ব্যাহত করতে চায়, ফলে একাত্তরের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ এক বাংলাদেশ, সেই স্বপ্নই বাস্তবায়ন করছেন তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। দেশরত্ন শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় করোনাসহ সকল বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে ২০৪১ সালের মধ্যেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে উঠবে, ইনশাআল্লাহ।