টেকনাফে বিজিবি দেখে আইস ফেলে পালালো পাচারকারিরা

15

হেলাল উদ্দিন: নাফ নদী দিয়ে মিয়ানমার থেকে ক্রিস্টাল মেথ বা আইসের একটি বড় চালান কক্সবাজারের টেকনাফে পাচারকালে জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। তবে এ ঘটনায় তারা কাউকে আটক করতে পারেনি।

বিজিবির দাবি, বিজিবির টহল দলের সদস্যদের দেখে প্লাস্টিকের বস্তা ভর্তি আইস ফেলে পালায় পাচারকারীরা ।

রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যংপাড়া বরফকল ও বেড়িবাঁধ এলাকায় চোরাকারবারীদের ফেলে যাওয়া একটি প্লাষ্টিকের বস্তার ভেতর থেকে ৪ দশমিক ২২৯ কেজি ক্রিস্টাল মেথ বা আইস জব্দ করা হয়েছে।

এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ মহিউদ্দীন আহমেদ।

বিজিবি সূত্র জানায়, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বিজিবি জানতে পারে রোববার রাতে টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যংপাড়ার বরফকল ও বেড়িবাঁধ এলাকা দিয়ে একটি বড় মাদকের চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পাচার হতে পারে। তাই টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২বিজিবি) উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ লতিফুল বারীর নেত্বতে ব্যাটালিয়ন সদর এবং টেকনাফ সদর চৌকির দুইটি টহলদল ওই এলাকায় গমন করে কয়েকটি উপদলে বিভক্ত হয়ে কেওড়া বাগান ও বেড়িবাঁধের কৌশলগত অবস্থান নেন। আনুমানিক রাত সাড়ে ১২টার দিকে টহলদল দুজন ব্যক্তিকে একটি বস্তা হাতে নিয়ে নাফ নদী পার হয়ে সীমান্তের শূণ্য লাইন থেকে আনুমানিক ৬০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নাইট্যংপাড়া বরফ কল এলাকা দিয়ে বেড়িবাঁধের দিকে আসতে দেখতে পায়। ওই ব্যক্তিদের চলাচলের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় টহলদল তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের হাতে থাকা প্লাষ্টিকের বস্তাটি ফেলে দিয়ে রাতের অন্ধকারের সুযোগে দ্রুত দৌড়ে কেওড়া বাগানের ভিতর দিয়ে নাফ নদীতে লাফিয়ে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে পালিয়ে যায়। টহলদল উল্লেখিত ওই স্থানে তল্লাশী চালালেও কোনো চোরাকারবারীকে পায়নি, তবে তাদের ফেলে যাওয়া একটি প্লাষ্টিকের বস্তা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। উদ্ধার করা বস্তার ভিতরে ৪.২২৯ কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস পাওয়া যায়।

লেঃ কর্নেল মোঃ মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, উদ্ধার করা মালিকবিহীন ক্রিস্টাল মেথ আইসগুলো বর্তমানে ব্যাটালিয়ন সদরের জমা রাখা হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করার পাশাপাশি তা উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।