টেকনাফে মাদক বিরোধী অভিভাবক সমাবেশ

9

হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ প্রতিনিধি: কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলা প্রেসক্লাবের আয়োজনে উপজেলা প্রশাসন, মডেল থানা ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় অভিভাবকদের নিয়ে মাদকবিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (৭ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলা শিক্ষা অফিসের হলরুমে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুনের সভাপতিত্বে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম সাইফী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা জহির হোসেন এমএ, আওয়ামীলীগ নেতা জহির আহমদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গফুর সওদাগর, সিনিয়র সাংবাদিক আশেক উল্লাহ ফারুকীসহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ টেকনাফ বিশেষ জোনের সদস্যবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া কর্মীরা।

বক্তব্য রাখেন টেকনাফ পৌর আওয়ামীলীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীর, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মোসলেহ উদ্দিন চৌধুরী, গন্যমান্যব্যক্তি আব্দুল করিম ও রহমত উল্লাহ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সালেহ আহমদ, সমাজসেবক হাজ্বী দিল মোহাম্মদ, মোহাম্মদ জয়নাল, আব্দুল লতিফ, আব্দুল আমিন, আওয়ামীলীগ নেতা শামসু ফকির, জহির, সর্দার নুরুল ইসলাম, কালা মিয়া, জামাল, নুরুল ইসলাম, নারী নেত্রী কুলসুমা আক্তার, সিকান্দর, আবুল কালাম, মোহাম্মদ সেলিম, হালিমা খাতুন, হাসিনা আক্তার, জুহুরা আক্তারসহ আরও অনেকে।

মাদক সেবন ও মাদক পাচারে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে সকল প্রকার ক্ষয়-ক্ষতি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ বিশেষ জোনের পরিদর্শক বিদ্যুৎ বিহারী নাথ। তিনি বলেন, মাদক একটি পরিবার তথা একটি দেশকে ধ্বংস করে দেয়। আসুন আমরা সকলে মাদক থেকে দূরে থাকি। আর মাদক ক্রয় বিক্রয়, ইয়াবা ব্যবসার রাজত্ব বাড়াতে অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতা করাসহ মাদক সংশ্লিষ্ট যেকোন তথ্য থাকলে আমাদেরকে জানান। আমরা জিরো টলারেন্স নীতি মাথায় রেখে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নিব। সাথে আপনাদের পরিচয়ও গোপন রাখা হবে।

টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম সাইফী বলেন, এরকম মহতী সমাবেশের আয়োজন করায় আমি উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মামুনকে ধন্যবাদ জানাই। তবে মাদক ব্যবসা বন্ধ করা একার পক্ষে সম্ভব না। তাই মামুনসহ যারা সমাজের পরিবর্তনের জন্য কাজ করে তাদেরকে এগিয়ে এসে কাঁধে কাধ মিলিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার এখনি সময়।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন বলেন, এলাকার যুব সমাজ তথা সকলকে অবৈধ কর্মকাণ্ড থেকে দূরে রাখতে আমার এই উদ্যোগ। আমার ডাকে সাড়া দিয়ে যারা এসেছেন আপনাদের সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আপনাদের সেবায় ও যেকোন সমস্যায় আগেও ছিলাম এখনো আছি আগামীতেও থাকব।

টেকনাফ উপজেলা সহকারী কমিশনার, (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী সভায় আগত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, চমৎকার একটি সচেতনতামূলক সমাবেশের আয়োজন করায় আমি সাংবাদিক মামুনকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই। পাশাপাশি আপনার এ মহতী উদ্যোগ চলমান রাখবেন সেই প্রত্যাশা করব। উনার মত উদ্যোগ প্রতিটি গ্রামে নিলে এ মাদক ব্যবসা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। মাদক সেবনের ফলে মানুষের শিক্ষা জীবন, ধর্ম জীবন এবং যাপিত জীবনের শারীরিক অপূরণীয় ক্ষতির সঙ্গে সঙ্গে মনস্তাত্ত্বিক বিপর্যয় নেমে আসে। একজন মাদকসেবীর জন্য গোটা পরিবার ভেঙে তছনছ হয়ে যায়। আসুন আমরা সবাই মিলে অন্তত নিজের পরিবারের স্বার্থে হলেও নিজের পরিবারকে মাদকমুক্ত রাখি। মাদক ব্যবসা বন্ধ করা একার পক্ষে সম্ভব নয়। যারা সাহসীকতা নিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হচ্ছে সকলের উচিত তাদেরকে সহযোগিতা করা।

পরে সকলকে মাদকবিরোধী শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়। সবশেষে উন্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্বে নানাবিধ মাদক সংশ্লিষ্ট সমস্যার সম্ভাব্য সমাধান ও পরামর্শ দেওয়া হয়।