নোয়াখালীতে জামায়াতের আমির গ্রেফতার

15

নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরপার্বতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন জামায়াতের আমির কাজী হানিফ আনসারীকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (১৫ অক্টোবর) রাত ৯টায় বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড ইদ্রিসপাড়ায় ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

চরপার্বতী ইউনিয়ন জামায়াতের আমির কাজী হানিফ আনসারী ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আমিন উল্যাহর ছেলে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি প্রণব চৌধুরী ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চরপার্বতী ইউনিয়নের কদমতলায় ‘বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পাঠাগার’ নামক স্থানীয় আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ভাঙচুর অগ্নিসংযোগের মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আগের তিন ডজনের বেশি মামলা রয়েছে। তবে সেগুলোতে তিনি জামিনে আছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার (৮ অক্টোবর) দিনগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে কাজী হানিফের নির্দেশে একদল দুর্বৃত্ত চরপার্বতী ইউনিয়নের কদলতলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ককটেল বিস্ফোরণ, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে।

এ ঘটনায় ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে কাজী হানিফকে প্রধান আসামি করে ৩১ জনের নামসহ ২০-২৫ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করেন। আসামিদের মধ্যে বিএনপি, জামায়াত, যুবদলসহ বিরোধী দলের উপজেলা সিনিয়র নেতাদের নাম রয়েছে।

বসুরহাট পৌরসভা জামায়াতের আমির মাওলানা মোশাররফ হোসাইন বলেন, মিথ্যা বানোয়াট উদ্দেশ্যপ্রণোদিত গায়েবি মামলায় বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে। অবিলম্বে এসব গায়েবি মামলা প্রত্যাহার এবং কাজী হানিফসহ বন্দিদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।