বিএনপি-জামায়াতের অপতৎপরতা প্রতিরোধে আওয়ামী লীগ প্রস্তুত: লিটন

9

আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের যে কোনো অপতৎপরতা প্রতিরোধে আওয়ামী লীগ প্রস্তুত আছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

শনিবার (২৮ অক্টোবর) বিকেলে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের দক্ষিণ গেটে শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, নৈরাজ্য, অপরাজনীতি ও অব্যাহত দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ যৌথভাবে এ সমাবেশের আয়োজন করে।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। সমাবেশে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, নির্বাচন আসলেই একটি দল, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি, যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার নেপথ্যে সকল কাজ করেছে, সেই দল বিএনপির নেতৃত্বে বিএনপি-জামায়াত জোট চক্র নানা অশুভ খেলায় মেতে ওঠে। এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি। ২০১৪/১৫ সালে তারা আগুন সন্ত্রাস করেছে, গাড়িতে আগুন দিয়ে অসংখ্য নারী, পুরুষ ও শিশুকে হত্যা করেছে, পবিত্র কোরআন শরীফেও আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল, সেকথা আমরা ভুলে যাইনি। আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের যেকোন অপতৎপরতা প্রতিরোধে আওয়ামী লীগ প্রস্তুত আছে। সেটি আমরা আরেকবার প্রমান করে দিবো।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লিটন বলেন, যাদের পায়ের তলায় মাটি নাই, তারাই সকালে বিকালে বলে ‘ঈদের পরে, রোজার পরে, বৃষ্টির পরে, শীতের পরে সরকার পতনের আন্দোলন হবে।’ আজ পর্যন্ত তারা শেখ হাসিনা সরকারের পতন ঘটাতে পারেনি এবং পারবেও না।

রাসিক মেয়র লিটন বলেন, আজকে শুধু ঢাকা নয়, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, কুমিল্লা, বরিশাল, সর্বত্র মানুষ উন্নয়নের যে ছোঁয়া পেয়েছে, সেই উন্নয়ন থেকে মানুষ নিজেকে বঞ্চিত করতে চায় না। তারা ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াতের সেই লুটপাট দেখতে চায় না, বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল, সেই জায়গায় আর আমরা যেতে চাই না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে, আরো হবে, আরো উন্নয়ন, আরো সুন্দর অবকঠামো উন্নয়ন হবে। সবদিকে বাংলাদেশ যেন বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারে, সেজন্যে এই নির্বাচনে আমাদের জয়যুক্ত হতেই হবে। আমরা জয়যুক্ত হবো ইনশাল্লাহ।