বাউফলে ইউপি উপনির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ

16

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর বাউফলে কেশবপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টায় উপজেলা নির্বাচন অফিসে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহীন শরীফ প্রার্থীদের মাঝে এ প্রতীক বরাদ্দ দেন।

কেশবপুর ইউপি উপনির্বাচনে ৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন এবং তাদের মনোনয়ন বৈধতা পেয়েছেন। তবে মেজবাহ আহসান খুররাম নামে এক প্রার্থী তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। বাকি পাঁচজনের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মো. আ. মালেক মিয়া পেয়েছেন ঘোড়া প্রতীক, কেশবপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ (তুহিন) পেয়েছেন আনারস, প্রয়াত চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকুর ভাই ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. জিয়া উদ্দিন সুজন পেয়েছেন টেবিল ফ্যান, মো. এনামুল হক (অপু) পেয়েছেন অটোরিক্সা ও লতুফা বেগম পেয়েছেন চশমা প্রতীক।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, গতবছর ১৪ আগস্ট ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু মারা যান। পরে শূন্য পদে উপনির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন। আাগমী ৯ মার্চ এ উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে চলবে ভোটগ্রহণ। এ ইউনিয়নে ২৭ হাজার ৪শ ৪২ জন ভোটার রয়েছেন। ১০টি ভোট কেন্দ্রে এ ভোটারেরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

অন্যদিকে প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই প্রচার-প্রচারণায় নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আ. মালেক মিয়া ভরিপাশা ও বাজেমহল এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালায়। এছাড়াও আনারস প্রতীকের আবুল কালাম আজদ তুহিন মমিনপুর এলাকায়, টেবিল ফ্যান প্রতীকের জিয়া উদ্দিন সুজন ও অটোরিক্সা প্রতীকের এনামুল হক অপুও প্রচারণা চালিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মো. শাহীন শরীফ বলেন, সুষ্ঠু অবাধ নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত ভোটগ্রহণের জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রার্থীরা আচরণবিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা করবেন। কোনো প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান রিটার্নিং অফিসার।