টেকনাফে বিজিবি-মাদক কারবারিদের সংঘর্ষে নিহত ১

10

হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ প্রতিনিধি: কক্সবাজারের টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদায় বিজিবির সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বিজিবির এক সদস্য আহত হয় এবং এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। এছাড়াও গুলিবিদ্ধ হয়ে অন্তত ৭জন আহত হয়েছে।

বিজিবি সূত্রে জানা যায়, বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী লেদা এলাকার জাফর আলমকে আটক করা হয়েছে।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২টায় টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা এলাকায় বিজিবি সদস্যরা ইয়াবা উদ্ধারে গেলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছে টেকনাফের হ্নীলার ২৪ নম্বর লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মো রফিক (৪৮)। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ৭ জনকে আইওএম হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসা জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এসময় গুরুতর আহত বিজিবি সদস্য আবদুল মালেককে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে আইওএম হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছেন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বিকেল ৩টা) আহতরা কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পৌঁছেনি।

টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী জানান, লেদা এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলমের ভাই জাফর আলমের বাড়িতে বিজিবির একটি দল অভিযান চালায়। এসময় ইয়াবাসহ এক ব্যক্তিকে আটক করে নিয়ে যাওয়ার সময় সংঘবদ্ধ মাদক কারবারিসহ রোহিঙ্গা ও স্থানীয়রা বিজিবির ওপর হামলা চালায়। বিজিবিও পাল্টা গুলি করে। এ ঘটনায় একজন নিহত সহ ৭ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় একজন নিহত ও কয়েক আহত হওয়ার খবর শুনেছেন বলে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ইয়াবা উদ্ধারের অভিযানে বিজিবি ওপর হামলা, গুলি ও পাল্টা গুলির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় হতাহত হয়েছে। বিষয়টি বিস্তারিত গণমাধ্যমে জানানো হবে।