জবাই করে হত্যার পর যুবকের মুখ পুড়িয়ে দিলো দুর্বৃত্তরা

34

আহমেদ শরীফ রনি: নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের ডিঙাপোতা হাওর থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই যুবককে জবাই করে হত্যার পর আগুন দিয়ে মুখ পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার তেতুলিয়া গ্রামের পূর্বদিকে ডিঙাপোতা হাওর থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

অজ্ঞাত ওই যুবকের বয়স ৩৩-৩৫ বছর হবে বলে ধারণা করছে পুলিশ। লাশের পরিচয় সনাক্তে কাজ করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে হাওরে কাজের জন্য আসা স্থানীয় লোকজন এক যুবকের জবাই করা রক্তাক্ত লাশ দেখতে পায়। হত্যার পর গায়ে থাকা শার্ট-প্যান্ট খুলে তাতে আগুন লাগিয়ে ওই যুবকের মুখমণ্ডল পুড়িয়ে দেয় দূর্বৃত্তরা। বিষয়টি জানাজানি হলে আশপাশের অসংখ্য মানুষ এসে জড়ো হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ঘটনার খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস) সাহেব আলী পাঠান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বারহাট্টা সার্কেল) সুমন চন্দ্র দাসসহ থানা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

তেতুলিয়া ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য জুয়েল মিয়া বলেন, ওই যুবক আমাদের আশপাশের এলাকার নয়। কারণ সকালে ঘটনাস্থলে লাশ দেখতে আশপাশের কয়েকটি গ্রামের ৩-৪ হাজরের বেশি মানুষ এসেছিল। এলাকার হলে মুখ পুড়ানো থাকলেও হাত- পা দেখেও চিনতে পারতো স্বজনরা। আমাদের ধারণা- দূরের কোন এলাকা থেকে পরিকল্পনা করে ওই যুবককে এখানে নির্জন হাওরে রাতে ডেকে এনে হত্যা করেছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে হত্যার রহস্য উদঘাটন করা হোক।

মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, অজ্ঞাত ওই যুবককে জবাই করে হত্যার পর তার পরনের কাপড় খুলে আগুন ধরিয়ে মুখমণ্ডল পুড়িয়ে দেয় হত্যাকারীরা। মূলত পরিচয় লুকানোর জন্যই হত্যাকারীরা এই কাজ করেছে। পরিকল্পিত হত্যাকান্ড বলে মনে হচ্ছে। আঙুলের ছাপের সহায়তায় লাশের পরিচয় সনাক্তের জন্য কাজ করছে পিবিআই।

তিনি বলেন, সব দিক বিবেচনায় নিয়ে গুরুত্ব দিয়ে এ ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। দ্রুতই এই হত্যার রহস্য উদঘাটন করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য বিকালে নেত্রকোনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে জানান ওসি।