চরফ্যাশনে প্রকাশ্য দিবালোকে ভেকু দিয়ে ঘর ভেঙে দিলো দুর্বৃত্তরা

26

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানাধীন জাহানপুর ৯নং ওয়ার্ডে প্রকাশ্যে ভেকু দিয়ে ঘর ভেঙে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে সাবেক এক চেয়ারম্যানের দুর্বৃত্ত বাহিনীর বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী মোঃ মোজাম্মেল হক অভিযোগ করে বলেন, ২০১০ সালে বন্দবস্ত সূত্রে ডিয়ারা খতিয়ান নং ১০৬০ দাগ নং ৪২১৯,৪৩২০ এক একর পঞ্চাশ শতাংশ জমির মালিক হয়ে বাড়ি ঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন যাবত বসবাসরত আছি। ২০১১ও ২০১২ সালে আমেনা বেগম নামের এক ব্যক্তি আমার দাগের জমি দাবি করে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন, আদালত দীর্ঘদিন মামলাটি পর্যালোচনা করে আমেনা বেগমের সঠিক কাগজপত্র না থাকায় বিজ্ঞ আদালত মামলাটি খারিজ করে দেয়, কিন্তু বারো বছর আমার ভোগ দখলে থাকা জমি আমার পাশ্ববর্তী সাবেক চেয়ারম্যান আলী আকবর ও এমতিয়াজ বাবুল নামের দুই ব্যক্তি আমেনা বেগমকে ভুয়া খতিয়ান তৈরি করে আমার জমি ভোগ দখলের চেষ্টা করে, আমি কোন উপায় না পেয়ে তাদের কালো থাবা থেকে রক্ষা পেতে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করি।

বিজ্ঞ আদালত মামলাটি অনুকূলে নিয়ে আমাদের জমির উপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন, এমন অবস্থায় আমার প্রতিপক্ষ আবার আমাকে হয়রানি করার জন্য গত ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ সালে তারা নিজের ঘরে নিজেরা আগুন দিয়ে আমাদের হয়রানি করার জন্য ১৫ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। আমরা মামলা জামিন নেওয়ার জন্য ঢাকা উচ্চ আদালতে গেলে, এ সুযোগে আলী আকবর ফরাজরী ও বাবুল গং একাত্রিত হয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গত ৭ জানুয়ারি ২০২৩ সালের ভোরে ভেকু দিয়ে বসত ঘর ভাংচুর করে আমার জমি জোরপূর্বক দখল করে, ঘরে থাকা টাকা পয়সা স্বর্ণ অলংকার যাহা কিছু ছিল তারা সব লুট করে নিয়ে যায়। সে থেকে আমি আমার পরিবার নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। আমি এঘটনার ন্যায় বিচার দাবি করছি।

এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান আকবর ফরাজীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার সাথে কোন ঝামেলার নাই। আপনারা সরেজমিনে এসে তদন্ত করেন। আমি একটা শালীসিতে আছি।